আইন-আদালত

দীর্ঘদিন পরে হলেও চাঞ্চল্যকর স্বপন হত্যায় একজনের ফাঁসি এবং নারীকে যাবজ্জীবন

দীর্ঘদিন পরে হলেও চাঞ্চল্যকর স্বপন হত্যায় একজনের ফাঁসি এবং নারীকে যাবজ্জীবন

 

স্টাফ রিপোর্টার(Somoysokal) দীর্ঘদিন পরে হলেও নারায়ণগঞ্জের স্বপন নামের এক ব্যক্তিকে সাত টুকরা করে হত্যায় একজনকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে আদালত। একই মামলায় এক নারীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে যাবজ্জীবন এবং এক ব্যক্তিকে খালাস প্রদান করা হয়েছে।

ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত আসামি হলেন পিন্টু দেবনাথ ও যাবজ্জীবন আদেশপ্রাপ্ত আসামি হলেন রত্না রানী চক্রবর্তী। খালাস পেয়েছেন আব্দুল্লাহ আল মামুন।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক উম্মে সরাবান তহুরার আদালত এ আদেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি মাকসুদা আহমেদ। তিনি এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার বরাত দিয়ে তিনি জানান, ২০১৬ সালের ২০ অক্টোবর ৪টা হতে ২০১৮ সালের ৯ জুলাই ১টায় যেকোন সময় এ হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। পরবর্তীতে মামলার বাদি স্বপনের বড় ভাই বাদি হয়ে অজিত কুমার সাহা ১৬ জুলাই মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও জানান, ভিকটিম স্বপনের মরদেহ পাওয়া যায়নি। আসামি পিন্টু ও রত্নার স্বীকারোক্তি দিয়েছে তারা হত্যাকান্ড করেছে। এবং ভিকটিমের লাশ সাত টুকরা করে বস্তায় করে শীতলক্ষ্যা নদীতে ফেলে দিয়েছে। ঘটনার দুই বছর পর মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিভিন্ন আলামত ও ভিকটিমের মোবাইল রত্নার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবির এসআই মফিজুল ইসলাম ২০১৮ সালের ২০ নভেম্বর তিনজনের নাম অভিযুক্ত করে আদালতে চাজশীর্ট দাখিল করেন। ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে আদালত আজ এ রায় প্রদান করেন।

Back to top button
%d bloggers like this: